আমেরিকা যাওয়ার উপায় ২০২৪ | আমেরিকা কাজের ভিসা

আমেরিকা যাওয়ার উপায়


আমেরিকা যাওয়ার উপায় ২০২৩ | আমেরিকা কাজের ভিসা 2023

আজকের আপনাদের সাথে শেয়ার করব  আমেরিকার জব ভিসা এবং আমেরিকা যাওয়ার উপায় নিয়ে। অনেকেই আমাদের কাছে জানতে চেয়েছেন  যে ২০২৪ সালে আমেরিকা যাওয়ার উপায়  এবং আমেরিকায় কোনো কাজের সুযোগ সুবিধা আছে কিনা। থাকলে সুবিধা গুলো কি কি এবং কিভাবে আমেরিকার যেতে পারবো এ সকল প্রশ্ন আমাদের কাছে অনেকেই করে থাকেন।

তাই আজকে আপনাদের এই প্রশ্নগুলো নিয়ে পোস্টটি তৈরি করা হয়েছে। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

আমেরিকার জব ভিসা ২০২৪

এর আগে ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকার জব ভিসা বা USA ওয়ার্কার প্রটেকশন এর নামে আমেরিকার জব  ভিসা অনেক কঠিন করে রাখছিল।

এরপর বাইডেন প্রশাসন আমেরিকান জব ভিসা টাকে আরও সহজ করার এবং কমপ্লিকেটেড করার উদ্যোগ নিয়েছে। ইতিমধ্যে তারা নির্দেশনা দিয়েছে আমেরিকার জব ভিসা  আরও সহজ করার। কারণ আমেরিকার অর্থনীতিকে আরো চাঙ্গা করার জন্য বিভিন্ন নেতারা এই ক্ষেত্রটিকে জোর দিয়েছে।

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং বিভিন্ন কাজ করার জন্য সে কাজের দক্ষ মানুষ প্রয়োজন। আর এই দক্ষ মানুষগুলো যখন সারা পৃথিবী থেকে আমেরিকায় যাবে তখন আমেরিকার ইকোনমি, ব্যবসা-বাণিজ্য সব ক্ষেত্রেই খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে তাই এই প্রক্রিয়াটা কে সহজ করা খুবই জরুরী।

কিন্তু এই প্রক্রিয়া দেখা যায় যে, অনেক এলিজেবল ওয়ার্কার বাদ পড়ে যাচ্ছে। যার কারণে বিভিন্ন কোম্পানী বা প্রতিষ্ঠান যথারীতি কার্যক্রম চালাতে পারতেছে না ঐ প্রক্রিয়ার জন্য। তাই আমেরিকান সরকার আমেরিকান জব ভিসা প্রক্রিয়াটিকে সহজ করে দেওয়ার জন্য নির্দেশনা দিয়েছে।বাইডেন সরকার ইতিমধ্যেই বলেছে যে এই প্রক্রিয়াটিকে আরো উন্নত এবং সহজ করার জন্য কিছু সময়ের প্রয়োজন।

তাই আমরা আশা করছি যে এই প্রক্রিয়াটা আগামীতে আরো সহজ হবে। এবং আরো ব্যাপক পরিমাণে বিভিন্ন দেশ থেকে ওয়ার্কার আমেরিকায় আসবে। USA এর মত একটা ফাস্ট ওয়ার্ল্ড কান্ট্রি তে যেতে হলে অবশ্যই আপনাকে কোয়ালিফাইড হতে হবে।এবং আপনার নির্দিষ্ট কোন সেক্টরে দক্ষ হতে হবে।

আমেরিকা যাওয়ার ভিসার প্রকার ভেদ

আমেরিকা যাওয়ার ভিসা ক্যাটাগরি গুলার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে H1B. এই ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন স্পেশালিস্ট দক্ষ শ্রমিকরা আমেরিকায় যেতে পারে। এছাড়াও আছে H2A, H2B, H3,  H4,  L1 এবং L2।

এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে h1b। বিভিন্ন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের যদি কোন কর্মী প্রয়োজন হয় তাহলে তারা এই সেক্টরের মাধ্যমে নিতে পারে। এই সেক্টরের মাধ্যমে বিভিন্ন দক্ষ কর্মীগণ জব পেয়ে থাকে।

H1b সেক্টরের জব ভিসা

h1b  সেক্টরের একটি নির্দিষ্ট ক্যাটাগরির রয়েছে। এই সেক্টরে বাৎসরিক 65 হাজার কর্মী নেবে এবং 20 হাজার নিবে অ্যাডভান্স লেভেলের কর্মী। অর্থাৎ অনার্স মাস্টার্স এরকম শিক্ষাগত যোগ্যতা 20 হাজার কর্মী নেবে।

h1b ক্যাটাগরির ভিসা মাধ্যমে বিভিন্ন দেশের কর্মীগণ স্থায়ীভাবে আমেরিকায় জব করার সুযোগ পায়। h1b এর মাধ্যমে আমেরিকার বিভিন্ন কোম্পানির বাইরের দেশের কর্মীদের ইনক্লুড করতে পারে অর্থাৎ নিয়োগ দিতে পারে বিশেষ কিছু পেশায়।

এখানে অনেকেরই বিভিন্ন রকম কনফিউশন থাকে। অনেকের বিভিন্ন হেজিটেশন ফিল করে এবং এ নিয়ে বিভিন্ন প্রতারণার শিকার হয়।

এই কারণে আপনাদের বলব যারা h1b ভিসার জন্য আবেদন করবেন তারা অত্যন্ত সতর্কতার সাথে আবেদন করবেন। এই প্রক্রিয়ায় আপনার Employer আপনার কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে সবকিছু দেখে  সিলেক্ট করবে। এরপর সে আপনার সিভি ওই দেশের লেবার মিনিস্ট্রি থেকে অ্যাপ্রভাল নিবে ।

অর্থাৎ ওই সেক্টরে আপনি নির্দিষ্ট যে কাজটার জন্য যাবেন ওখানে ওই লেভেলের নির্দিষ্ট কিছু ক্রাইসিস থাকতে হবে। এটাই হচ্ছে মেন ইস্যু।

সে ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠান ডিসিশন নিবে আপনাকে নির্বাচন করবে কিনা।যদি নিয়োগ দেয় তখন ঐ প্রতিষ্ঠানে রেজিস্ট্রেশন করবেন। তারপর আপনার পিটিশন ফাইল করবেন। এরপর ইউএসআইএস এইসব পিটিশন গুলোকে যাচাই-বাছাই করবে। যাচাই-বাছাই করার পর যারা এলিজেবল হবে তাদের মধ্যে আবার লটারি হবে লটারি হওয়ার পর নির্দিষ্ট কিছু সংখ্যক মানুষকে নিয়োগ দিবে।

এই পিটিশন গুলো এপরুভ হওয়ার পর আপনি H1 ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে খুব সতর্কতার সাথে আবেদন করতে হবে।

বিশ্বস্ততার সাথে আপনার এম্প্লয়ার আপনাকে কি কারনে নিয়োগ দিচ্ছে বা এমপ্লোয়ার আপনাকে রিকোয়েস্ট করছে কিনা এসব তথ্য সঠিকভাবে দিতে হবে।

আমেরিকার জব ভিসা অন্যান্য ক্যাটাগরি 

জব ভিসার অন্যদিকে ক্যাটাগরি গুলো রয়েছে সেগুলো হচ্ছে H2A H2B H3  H4  L1 এবং L2

H2A আমেরিকার জব ভিসা

আমেরিকার জব ভিসা ২০২৪ এর  H2A ক্যাটাগরিতে মৌসুমী কৃষি কর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়।H2A হচ্ছে দক্ষ এবং অদক্ষ কর্মী নিয়োগের প্রক্রিয়া।

H3

H3 হচ্ছে একটা শিক্ষানবিস ভিসা।

H4

h4 হচ্ছে ওয়ার্কপারমিট নিয়ে পরিবার পরিজনদের জন্য এই ক্যাটাগরিতে ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবে।

L1

L1 হচ্ছে ইন্টারন্যাশনাল কোন সংস্থা তে কর্মরত কেউ যদি আমেরিকায় ট্রানস্ফার হয় অর্থাৎ usa যখন তার বদলি হবে তখন সেই L1 ভিসা নিয়ে যাবে। এক্ষেত্রে তার পোস্ট টা অবশ্যই ম্যানেজার লেভেল অথবা ঊর্ধ্বতন হতে হবে।

L2

এল টু ভিসা হচ্ছে ওই ইন্টার্নেশনাল সংস্থাতে কর্মরত কর্মকর্তাদের পরিবার পরিজনদের নিয়ে যাওয়ার জন্য এই ভিসা আবেদন করতে পারবেন।


Also read

আমেরিকায় কোন কাজের চাহিদা বেশি

এখন আমরা দেখব h1b ক্যাটাগরিতে কোন লেভেলের বা কোন কাজের জন্য অ্যামেরিকাতে বেশি লোক নিয়োগ করা হয় এই ক্যাটাগরির মাধ্যমে।

আমেরিকায় যে যে সেক্টরে কাজ পাওয়া যায় তার মধ্যে রয়েছে,,


  • আর্কিটেকচার,
  • ইঞ্জিনিয়ারিং
  • ম্যাথমেটিক্স,
  • ফিজিক্যাল সাইন্স
  • সাইন্স
  • মেডিকেল
  • হেলথ এডুকেশন
  • বিজনেস স্পেশালিস্ট
  • একাউন্টি্‌ ফিনান্স


এছাড়া বিভিন্ন বিভিন্ন কম্পানি দক্ষ কর্মী নিয়োগ দিয়ে থাকে।

আইটি সেক্টরে যদি আপনার কোন দক্ষতা থেকে থাকে তাহলেও আপনি আমেরিকা জব ভিসার জন্য h1 ক্যাটাগরিতে আবেদন করতে পারবেন।

আশা করি আজকের এই আমেরিকার জব ভিসা পোস্ট থেকে আপনারা অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে গেছেন যে আমেরিকার কিভাবে জব ভিসা নিয়ে যেতে পারবেন usa জব করার জন্য কি কি অপরচুনিটি রয়েছে সেগুলো সম্পর্কে ধারণা পেয়েছেন।

এরপরে যদি এ সম্পর্কে আরও কমে প্রশ্ন থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে আমাদের জানাবেন আমরা যথাসাধ্য সাহায্য করার চেষ্টা করব ।

1 thought on “আমেরিকা যাওয়ার উপায় ২০২৪ | আমেরিকা কাজের ভিসা”

Leave a Comment