কুয়েত ভিসা ২০২৩ | কুয়েত ভিজিট ভিসা বিস্তারিত এখানে

কুয়েত ভিসা ২০২৩

কুয়েত ভিসা ২০২২ | কুয়েত ভিজিট ভিসা
Kuwait Visit Visa 2022

কুয়েত প্রবাসীরা তাদের নিকট আত্মীয় বা পরিবার পরিজনদের জন্য কুয়েত ভিজিট ভিসার  আবেদন করতে পারবে। এক্ষেত্রে আবেদনকারীকে অবশ্যই কুয়েত প্রবাসী হতে হবে। এবং আবেদনকারীর জন্য পাসপোর্ট এর বৈধতা ছয় মাসের বেশি হওয়া উচিত। এবং আবেদনকারীদেরও পাসপোর্ট এর বৈধতা ছয় মাসের বেশি হওয়া উচিত।এবং যিনি আবেদন করবেন তার বেতন কুয়েতি দিনারে 250kd বেশি হতে হবে।

কুয়েতের ভিসার জন্য কিভাবে আবেদন করবেন

কুয়েত প্রবাসী যিনি ভিসার জন্য আবেদন করতেছে তার সাথে আপনার কি সম্পর্ক সেই বিষয়ে উল্লেখ করতে হবে। এবং এই সম্পর্কের হলফনামার জন্য আবেদন করতে হবে। আবেদনগুলো প্রতিটি প্রবাসী তাদের নিজস্ব দূতাবাসে করবে।

কুয়েত ভিসার জন্য যেসব প্রয়োজনীয় কাগজপত্র লাগবে

১. আসল পাসপোর্ট এবং তার ফটোকপি

২. আসল সিভিল আইডি এবং সিভিল আইডির ফটোকপি

৩. এবং প্রতি জন আবেদনকারীর পাসপোর্ট এর ফটোকপি।

দূতাবাসে গেলে এভিডেভিট বা সম্পর্কের হলফনামা জন্য আবেদন করতে গেলে আবেদনকারীকে পাসপোর্ট এবং সিভিল আইডি কপি জমা দিতে হবে। তারপর সেখান থেকে একটা ফর্ম দেওয়া হবে এবং এই ফরমটি যেকোনো টাইপিং সেন্টারে গিয়ে অনুবাদ করে সেই ফরমটি পুনরায় দূতাবাসে জমা দিতে হবে।

আপনি যদি সবকিছু সঠিকভাবে জমা দেন তাহলে কয়েক ঘন্টার মধ্যেই এফিডেভিট দূতাবাস থেকে পেয়ে যাবেন।

অর্থাৎ প্রথমে যাকে আপনি কুয়েতে নিয়ে আসতে চান তার জন্য একটি এবিডেবিড এর প্রয়োজন। এক্ষেত্রে আবেদনকারী যদি দুইজন হয় বা তিনজন হয় অর্থাৎ একাধিক ব্যক্তি হয় তাহলে একাধিক ব্যক্তি সাথে আপনার কী ধরনের সম্পর্ক, সে সম্পর্ক এবিডেবিড  প্রয়োজন।

কুয়েতের ভিসার জন্য দ্বিতীয় ভাগ

কুয়েতের ভিসা পাওয়ার জন্য প্রথমেই আপনাকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যে কোন অফিসে যেতে হবে। কুয়েতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অফিস কোথায় পাবেন?

লিবারেশন টাওয়ারের দ্বিতীয় তলায় সেকেন্ড ফ্লোরে অবস্থিত একটি অফিস রয়েছে এখান থেকে আপনাকে 5kd স্টাম্প পেপার নিতে হবে। এবং ওই এভিডেভিড পিছনে 5kd স্টাম্প পেপার নিতে হবে। তারপর সম্পর্কের শপথপত্র সত্যায়িত করতে হবে। যাকে আমরা আঞ্চলিক ভাষায় খারিজ বলে থাকি। এরপর মন্ত্রণালয় থেকে আপনাকে কিছুক্ষণ পরে ওই এভিডেভিট এর সনদপত্র  দেওয়া হবে।

কুয়েতের ভিজিট ভিসার জন্য তৃতীয় ধাপ

যেকোনো টাইপিং সেন্টারে গিয়ে তাদেরকে ভিজিট ভিসার জন্য আবেদন করতে বলুন। তারা প্রতিটি আবেদনের জন্য কুয়েতি টাকা 1 দিনার নিতে পারেন। স্থান কাল ভেদে এই চার্জ আলাদা হতে পারে।

ভিজিট ভিসার জন্য চতুর্থ ধাপ

আপনি কুয়েতে যে গভর্নমেন্ট এর অধীনে রয়েছেন। সেই গভর্মেন্টের ইমিগ্রেশন গিয়ে আবেদনপত্র জমা দিতে হবে। প্রতিটি আবেদনকারীর জন্য আপনাকে আপনার পাসপোর্ট, সিভিল আইডি, বেতনের সার্টিফিকেট এর কপি জমা দিতে হবে। এছাড়াও আপনার কাছে থাকা রিলেশন বখ এবিডেবিড পত্রের অরজিনাল কপি জমা নিয়ে নিবে।তারপর তারা আপনাকে কয়েক ঘণ্টা পরে অথবা পরেরদিন আসতে বলতে পারে। 

কুয়েতি ভিজিট ভিসার পঞ্চম ধাপ

কুয়েতে ভিজিট ভিসার জন্য আপনার পঞ্চম ধাপ অনুসরণ করতে হবে সেটা হচ্ছে কুয়েতের ইমিগ্রেশন অফিসে যেতে হবে। তারপর সেখান থেকে আপনার ভিজিট ভিসা টি নিবে। এবং এর পিছনে 3kd স্টাম্প প্রয়োগ করতে হবে। এবং অফিসার কে ফেরত দিতে হবে। তিনি আপনার জন্য এটি স্টাম্প করবেন।

ষষ্ঠ ধাপ

সকল কাজ শেষ করার পর এবার আপনাকে এয়ারপোর্টে আসে আপনার আসল ভিসা জমা দিতে হবে। বিমানবন্দরে দুটি পরিসেবা রয়েছে। সরকারি ভিসা সংগ্রহের কেন্দ্র। আপনি যখন কুয়েত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে প্রবেশ করবেন তখন আগমনের মাধ্যম এবং 100 মিটার হেঁটে  আপনি মন্ত্রণালয় থেকে ভিসা সংগ্রহ করতে পারবেন।পাশেই রয়েছে এই সেবা। এবং এই সেবাগুলো সম্পূর্ণ বিনামূল্যে দেওয়া হয়। কেউ যদি চার্জ বা টাকাপয়সা চায় সে ক্ষেত্রে টাকা-পয়সার লেনদেন করবেন না।

আপনাদের অবগতির জন্য আরও জানিয়ে দিচ্ছি যে এই পরিষেবা টির নাম মারহাবা। মারহাবা হলো আপনি যখন কুয়েত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছাবেন আগমনের মাধ্যমে এবং 100 মিটার ডানদিকে হাঁটলে এই পরিষেবাটি পেয়ে যাবেন।

আপনি তাদেরকে ভিসা এবং ফ্লাইট এর বিবরণ দিতে পারেন। চাইলে একদিন আগে ভিসা জমা দিতে পারেন। তারা প্রতিদিন ভিসার জন্য পাঁচ দিনার করে চার্জ নেয়।


কুয়েত ভিসা 2022

আমি এতক্ষণ যে প্রক্রিয়াটি আলোচনা করলাম এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার নিকট আত্মীয় বা এবার পরিজনদের কুয়েত ভিজিট ভিসার মাধ্যমে এক মাসের জন্য কুয়েতে নিয়ে আসতে পারবেন। উল্লেখ্য যে এক মাসের মেয়াদ শেষ হলে যদি কোন ব্যক্তি অধিক একদিনও কুয়েতে অবস্থান করে তাহলে প্রতিদিনের জন্য তাকে কুয়েতি দিনার এ 10 কেডি জরিমানা করতে হবে।

  

কুয়েত ভিজিট ভিসা সম্পর্কে কিছু প্রশ্ন ও উত্তর

বাংলাদেশ থেকে কুয়েত এর ভিজিট ভিসা পাব কিনা?

কুয়েত এর ভিজিট ভিসা চালু হওয়ার সর্বশেষ যে এই আপডেটটি ছিল সেটি ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে অর্থাৎ 20 মার্চ থেকে কুয়েতের ভিসা দেওয়া শুরু হয়ে গেছে। অবশ্য নির্দিষ্ট কোন দেশের কথা উল্লেখ করা হয়নি। তবে আশা করা যায় সেখানে বাংলাদেশেও রয়েছে।

কুয়েতে ভিজিট ভিসায় এসে ওয়ার্কিং ভিসা পরিবর্তন করা যাবে কিনা?

এই প্রসেসটি শুধুমাত্র করোনাকালীন সময়ে চালু ছিল। কিছুদিন নিয়ম ছিল যে যারা শুধুমাত্র ভিজিট ভিসায় এসেছেন তারা তাদের বিষয়টিকে বাণিজ্যিক ভিসা রূপান্তর করতে পারতেন। কিন্তু সম্প্রতি এই নিয়মটি পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ এখন আপনাকে কুয়েতে ভিজিট ভিসায় আসলে ভিজিট ভিসাতেই থাকতে হবে। ওয়ার্কিং ভিসা রূপান্তর করতে পারবেন না। একমাসের বেশি থাকতে পারবেন না। এর থেকে বেশি থাকলে প্রতিদিনের জন্য আপনাকে ১০ দিনার জরিমানা করা হবে।

কুয়েতি ভিজিট ভিসায় যাওয়ার জন্য কত ডোস ভ্যাকসিন নিতে হয়।

কুয়েতে ভ্যাকসিন এর শর্ত অন্যান্য দেশগুলোর মতই অর্থাৎ আপনাকে  করনা  যেকোনো একটি ভ্যাকসিন নিলেই  কুয়েতে যেতে পারবেন। তবে অবশ্যই এক এক ভ্যাকসিন এর ক্ষেত্রে যে নিয়ম সঠিক ভাবে পালন করতে হবে।

ছোট শিশুদের ভিজিট ভিসায় কুয়েত আনা যাবে কিনা?

উত্তর হচ্ছে ছয় বছর সহ যেকোন বয়সী শিশুকে  যারা নিজের সন্তান এই ধরনের শিশুকে আনা যাবে প্রতিটি সদস্যের জন্য আলাদা করে এফিডেভিট বা সম্পর্কের পরিচয় পত্র থাকতে হবে।

ভিসিট ভিসা বের করতে লামানা লাগবে কিনা ?

কুয়েত ভিজিট ভিসা বের করতে কোন প্রকার লামানা লাগবেনা।

অনেকে হয়তো ইতিপূর্বেই কুয়েত ভিজিট ভিসা বের করে ফেলেছেন অনেকেরই হয়তো এই অভিজ্ঞতা রয়েছে নতুন যারা তাদের অনেকেই এই অভিজ্ঞতা নেই। তাছাড়াও পূর্বের থেকে বর্তমানে বেশ কিছু নিয়ম পরিবর্তন করেছে কাতার কর্তৃপক্ষ।

আজকের এই কুয়েত ভিজিট ভিসা 2022 পোস্টে যে তথ্যগুলো শেয়ার করা হলো  সাম্প্রতিক যারা কুয়েত ভিজিট ভিসা বের করেছে  তাদের কাছ থেকে, তাদের অভিজ্ঞতা থেকে নেয়া।

Leave a Comment