মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং | দেখে নিন কোন কাজগুলো কিভাবে করা যায়

মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং

মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং


আজকের পোষ্টে আমরা জানবো মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে করা যায়। এর আগে আমি একটি পোস্টের শেয়ার করেছিলাম মোবাইল দিয়ে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করা যায়। সেখানে বেশ কয়েকটি ফ্রীলান্সিং ক্যাটাগরি নিয়ে আলোচনা করছিলাম যেগুলো মোবাইল ফোন দিয়েই করা যায়। তাই আজকে আমরা মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে করা যায় সেই বিষয়েও গুলো জানার চেষ্টা করব।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর অনেকগুলো পার্ট হয়েছে। সেগুলোর অধিকাংশই  আপনি মোবাইল দিয়েই করতে পারবেন যদি আপনার ইচ্ছা এবং কাজ করার আগ্রহ থাকে। তেমনি ডিজিটাল মার্কেটিং এর গুরুত্বপূর্ণ একটি পার্ট হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং। আপনি চাইলে আপনার হাতের মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং এর সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করতে পারবেন।

এজন্য আজকে আমরা এই পোস্টে জানবো মোবাইল দিয়ে কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং বা সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করতে পারবেন।

মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং বা সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং 

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলতে আমরা বুঝে থাকি বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেমন ফেসবুক, টুইটার, লিঙ্কডইন, ইনস্টাগ্রাম। আমাদের প্রায় সবারই বর্তমানে এখন একটা না একটা সোশ্যাল মিডিয়াতে অ্যাকাউন্ট রয়েছে। কারো হয়তো বা ফেসবুক টুইটার কারো ইনস্টাগ্রাম কিংবা  লিঙ্কডইন অথবা সবগুলোতেই আছে।

আমরা এই অ্যাকাউন্ট গুলো ব্যাবহার করি শুধুমাত্র বন্ধু বান্ধবের সাথে যোগাযোগ করার জন্য, তাদের সাথে যুক্ত থাকার জন্য। অথবা একটু বিনোদন বা বিভিন্ন পারপাসে এই অ্যাকাউন্ট গুলো ব্যবহার করে থাকি।

কিন্তু প্রফেশনাল ভাবে আমরা এই সোশ্যাল মিডিয়ার প্রোফাইল গুলোকে ব্যবহার করতে পারি মার্কেটিং এর কাজে। তাহলে চলুন এই বিষয়গুলোই এখন জেনে নেই।


মোবাইল দিয়ে কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করে

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে চিন্তা করলে আমাদের এখানে সবচেয়ে বেশি যেই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করা হয় সেটা ফেসবুক।ফেসবুক ব্যবহার করার নিউজফিডে বিভিন্ন ধরনের কোম্পানির পেইজ বা অ্যাড আমাদের সামনে চলে আসে।

বিভিন্ন ধরনের কোম্পানি তাদের পণ্যের প্রচার প্রচারণা চালায় ফেসবুকের মাধ্যমে। এবং সেগুলোতে আমারা  লাইক দেই শেয়ার দেই বিভিন্ন ধরনের ভিডিও আসে সেগুলো দেখি। কখনো বা তাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করি। অনেক সময় বিভিন্ন পণ্য দেখে আমাদের ভালো লেগে যায় তখন সেগুলো অর্ডার দেই কেনার জন্য।

অনেক সময় আমরা এগুলো আমাদের প্রোফাইলে গ্রুপে ইত্যাদি জায়গায় শেয়ার করে থাকি। এই যে আমরা তাদের পণ্য বা ভিডিওগুলি শেয়ার করে আমাদের অজান্তেই  কিন্তু আমরা তাদের পণ্যগুলো প্রমোট করে দিচ্ছি বা মার্কেটিং করে দিচ্ছি।

এই কাজ গুলো যদি আমরা আরেকটু অরগানাইজ মাধ্যমে আমাদের কোম্পানীর জন্য বা ক্লায়েন্ট এর জন্য করে থাকি সেটিই হতে পারে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর কাজ।

মনে করুন আপনি একটি ক্লায়েন্টের কাজ করতেছেন। সেই ক্লায়েন্টের একটি প্রোডাক্ট হতে পারে সেটা বুক স্টোর। অর্থাৎ সে অনলাইনে বই বিক্রি করে। এখন তার বইয়ের প্রচার প্রচারণা বা বিক্রয় বৃদ্ধি করার জন্য আমরা যদি অনলাইনে সোশ্যাল মিডিয়া গুলোতে কাজ করি সেটা হতে পারে সেই কোম্পানির জন্য সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বা ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কিত একটি কাজ।

বিভিন্ন ধরনের জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া রয়েছে সেগুলোতে আপনার প্রোডাক্ট বা পন্য জন্য একটি প্রফাইল, পেজ বা গ্রুপ তৈরি করতে পারেন।একাউন্ট খোলার পরে কিন্তু  প্রথমে সেই পণ্য সম্পর্কে পোস্ট দেওয়া যাবে না। প্রথমে আপনাকে নির্বাচন করতে হবে আপনার টার্গেট অডিয়েন্স কারা।

এক্ষেত্রে যদি আপনি একটা বইয়ের মার্কেটিং করতে চান তাহলে প্রথমে আপনাকে ভাবতে হবে এই বইটি কোন বয়সের মানুষদের জন্য লেখা। এটা হতে পারে টিন এজারদের জন্য, অথবা বয়স্কদের জন্য আবার শিশুদের জন্যও হতে পারে গল্পের বই বা ইত্যাদি ইত্যাদি। প্রথমে এটা আপনাকে ফাইন্ড আউট করতে হবে।

যদি আপনি ফাইন্ড আউট করার পর বুঝতে পারেন যে আপনি যে বইটার মার্কেটিং করতে চাচ্ছেন সেটা টিনএজারদের জন্য।

এখন আপনি যেই গ্রুপটা খুলেছেন সেখানে টিন-এজারদের নিয়ে কিছু ভালো মানের আর্টিকেল বা ভিডিও পোস্ট করতে হবে। যেন তারা সেটাকে পজিটিভলি নেয়। যখন আপনি সেখানে বেশ কিছু পোস্ট করবেন যখন সেখানে আপনার অডিয়েন্স দের রেসপন্স পাবেন ঠিক তখনই আপনার পণ্যের মার্কেটিং শুরু করে দেবেন অর্থাৎ আপনার পণ্যগুলো প্রমোট করতে শুরু করবেন ওই গ্রুপে।


গ্রুপে কিভাবে আপনার প্রোডাক্ট মার্কেটিং করবেন

গ্রুপের প্রমোট মার্কেটিং করার জন্য প্রথমে আপনাকে ওই প্রোডাক্ট সম্পর্কিত বিভিন্ন প্রশ্ন সেই প্রোডাক্ট এর বিভিন্ন ফিচার রিলেটেড কিছু পোস্ট করতে হবে অডিয়েন্সদের উদ্দেশ্যে। এভাবে আস্তে আস্তে আপনাকে মার্কেটিং এর কাজগুলো করে যেতে হবে।

আর এই কাজগুলো করার জন্য আমার মনে হয় না যে ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ এর কোন প্রয়োজন আছে। এগুলো খুব সহজভাবেই যেভাবে আপনি নিয়মিত হতে থাকা মোবাইল দিয়ে ফেসবুক গ্রুপে বা নিজের আইডি তে পোস্ট করতেছেন সেভাবেই সেই পণ্য সম্পর্কে পোস্ট করে থাকবেন।

কারণ আমরা মোবাইল দিয়ে অহরহ ফেসবুক ইনস্টাগ্রাম বা টুইটার প্রতিনিয়ত চালাচ্ছি। তাই এই ধরনের সোশ্যাল মিডিয়ার ওয়েবসাইট বা অ্যাপ গুলো রয়েছে এগুলো আমাদের মোবাইলে ইন্সটল করে আমরা  সহজেই মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ গুলো করতে পারি।

মার্কেটপ্লেসে মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে করবেন

অনলাইনে যে মার্কেটপ্লেসগুলোর রয়েছে তাদের প্রায় সবগুলোই মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন বা মোবাইল অ্যাপস রয়েছে। সেগুলো আপনার মোবাইলে ইন্সটল করে নিবেন।

যদি আপনি Upwork.com  কাজ করেন তাহলে গুগল প্লে স্টোর থেকে আপওয়ার্ক এর অ্যাপসটি ইন্সটল করে নিবেন। আবার যদি freelancer.com ব্যবহার করে থাকেন তাহলে তাদেরও মোবাইল অ্যাপ রয়েছে সেটা ডাউনলোড করে নিবেন।

এছাড়া যদি এবং অন্যান্য মার্কেটপ্লেসে কাজ করেন তাহলে প্রথমে তাদের অ্যাপসটা আগে আপনার ফোনে ডাউনলোড করে নেবেন।

মোবাইল দিয়ে মার্কেটপ্লেস ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ পাওয়ার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া রিলেটেড এই কাজগুলো ওই মার্কেটপ্লেসগুলোতে খোঁজাখুঁজি শুরু করে দিবেন।

যখন কাজ পাবেন তখন আপনি বায়ারের সাথে কন্টাক্ট করে যাবতীয় ইনফরমেশন নিয়ে কাজ বুঝে সেই অনুযায়ী কাজ করে মোবাইল দিয়েই কিন্তু  ডিজিটাল মার্কেটিং এর সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কাজ করতে পারবেন।

আর সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর কাজগুলো কিন্তু অন্যান্য থেকে একটু সহজেই। আপনি যদি ভাল ইংরেজি জানেন এবং আপনার কাছে যদি একটি ভাল মানের  স্মার্টফোন থাকে তাহলে আপনি যেকোনো ইনটানেশনাল মার্কেটপ্লেস বা লোকাল মার্কেটে মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ করতে পারবেন।

মোবাইল দিয়ে কিভাবে ছবি ও ভিডিও এডিটিং করবেন

আরেকটি কথা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার জন্য কিন্তু প্রতিনিয়ত আমাদের বিভিন্ন ছবি বা কখনো কখনো  ভিডিও এডিটিং এর প্রয়োজন হয়। এখন অনেকেই বলতে পারেন আমার তো কম্পিউটার নেই আমি কিভাবে মোবাইল দিয়ে ভিডিও বা ফটো এডিটিং করব। তাহলে চলুন জেনে নেয়া যাক কিভাবে “মোবাইল ফোন দিয়ে ফটো এবং ভিডিও এডিটিং” করা যায়।

মোবাইল দিয়ে ফটো এডিটিং

ফটো এডিটিং করার জন্য প্লে স্টোরে প্রচুর পরিমাণে ফটো এডিটিং অ্যাপস রয়েছে। এই ফটো এডিটিং অ্যাপ গুলোর মধ্যে যেটা আপনার জন্য ভালো সেগুলোর যেকোনো একটা ডাউনলোড করে সেটাতে আপনার ফটো এডিটিং এর কাজ অনায়াসে করতে পারবেন।

মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিটিং

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার জন্য আমাদের বিভিন্ন প্রোডাক্ট প্রমোশন করার জন্য কিছু ভিডিও আপলোড করতে লাগে। এই ভিডিওগুলো যদি এডিট করা না থাকে তাহলে আপলোড করার আগে আপনাকে এডিট করে নিতে হয়।

এই কাজগুলো আপনি মোবাইলের অ্যাপস দিয়ে করতে পারবেন। ভিডিও এডিটিং করার জন্য প্রচুর পরিমাণে এপস প্লে স্টোরে ফ্রিতে পেয়ে যাবেন। 

আজ থেকে তিন চার বছর আগেও এই অ্যাপস গুলো এত সহজলভ্য ছিল না। বর্তমানের মোবাইল ইউজারের সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে এই অ্যাপ গুলো চাহিদা প্রচুর পরিমাণে বেড়ে গেছে।

তাই এখন বড় বড় সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের  সফটওয়্যার  গুলোর ডেক্সটপ ভার্শন এর পাশাপাশি মোবাইল ভার্সন বের করতেছে।এই কারণে বর্তমানে আমরা মোবাইল দিয়েও এই এডিটিং এর কাজ গুলো করতে পারতেছি।

আশা করি এই পোস্ট থেকে আপনারা বুঝতে পেরেছেন মোবাইল দিয়ে কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ গুলো করতে পারবেন। আপনাদের যদি কাজ করার আগ্রহ ইচ্ছা থাকে তাহলে অবশ্যই আপনারা মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ গুলো করতে পারবেন সেক্ষেত্রে একটু ধৈর্য আর পরিশ্রম বেশী করতে হবে।

মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং করার জন্য আপনাকে প্রথমে নিজের স্কিল ডেভেলপ করতে হবে। নিজের স্কিল ডেভেলপ করার জন্য আপনি বিভিন্ন ব্লগ পোষ্ট পড়তে পারেন। কাজ শেখার জন্য ইউটিউবে বিভিন্ন ফ্রি টিউট্রিয়াল পাওয়া যায় বর্তমানে প্রচুর পরিমাণে।সেগুলো দেখে নিজের স্কিল ডেভেলপ করতে পারেন। অথবা আপনার যদি কিছু অর্থ খরচ করার সামর্থ্য থাকে সে ক্ষেত্রে আপনি অনলাইন বা অফলাইনে বিভিন্ন আইটি সেন্টার গুলো থেকে ট্রেনিং নিয়ে কাজ শিখতে পারেন।

আইটি সেন্টার থেকে ট্রেনিং নেওয়ার আগে অবশ্যই আপনাকে ভালো মানের কোন আইটি সেন্টার কে বেছে নিতে হবে। বর্তমানে অনলাইন বা অফলাইনে প্রচুর আইটি সেন্টার রয়েছে যেগুলোর  তেমন ভালো জপসঘ মেন্টর থাকেনা। তাই আপনাকে আগে ভালো কোন আইটি সেন্টার কে বেছে  নিতে হবে তারপর সেখানে কোর্স করতে পারেন।অথবা আপনি ইউটিউব, ব্লগ আর্টিকেল  পরেও এই কাজগুলো শিখতে পারেন।

আজকের মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং পোস্টটি কেমন লেগেছে আপনাদের অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাবেন।যদি পোস্টটি আপনার হেল্প ফুল মনে হয় থাকে তাহলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে তাদের জানার সুযোগ করে দেবেন। আর কিছু জানার থাকলে কমেন্ট বক্সে জানাবেন আপনার সর্বাত্মক সাহায্য করার চেষ্টা করব। ধন্যবাদ

Leave a Comment